২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

শিরোনাম
তেলবাহী লড়ি উল্টে গিয়ে আগুন লেগে এক জনের মৃত্যু। ভূমি বিষয়ক তথ্যাদি স্কুলের পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করো হয়েছে-ভূমিমন্ত্রী মির্জা ফকরুলরা তারেক জিয়ার নির্দেশে জনগনের সাথে প্রতারনা ও তামশা করছে-আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিগ বার্ড ইন কেইজ: ২৫ শে মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুর গ্রেফতার  ঢাবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে ১ কোটি টাকার বৃত্তি ফান্ড গঠিত হাইকোর্টের রায়ে ডিন পদে নিয়োগ পেলেন যবিপ্রবির ড. শিরিন জয় সেট সেন্টার’ থেকে মিলবে প্রশিক্ষণ, বাড়বে কর্মসংস্থান: পীরগঞ্জে স্পীকার বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস আগামীকাল টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী, সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী সাদি মোহম্মদ আর নেই

বিগ বস বন্ধের দাবিতে মন্ত্রীকে চিঠি

আপডেট: অক্টোবর ১১, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

রিয়েলিটি শো বিগ বস বন্ধের দাবিতে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরকে চিঠি লিখেছেন গাজিয়াবাদের বিজেপি বিধায়ক নন্দকিশোর গুজ্জর। বিগ বসের মতো অনুষ্ঠান কেন বন্ধ করা হবে— কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রককে পাঠানো চিঠিতে তার কারণও তুলে ধরেছেন তিনি।

চিঠিতে তিনি অভিযোগ করেছেন, ওই অনুষ্ঠান অশ্লীলতা ও কদর্যতাকেই তুলে ধরছে এবং তা পরিবারের সঙ্গে বসে দেখা যায় না।

নন্দকিশোরের দাবি, দেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের পরিপন্থী বিগ বস। চরম আপত্তিকর অন্তরঙ্গ দৃশ্য ওই অনুষ্ঠানের অংশ। বিভিন্ন জাতির পুরুষ ও নারী পরস্পরের শয্যাসঙ্গী হচ্ছেন, তা মোটেই মেনে নেওয়া যায় না। চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীর প্রসঙ্গ তুলে ধরে তুলনাও টেনেছেন গাজিয়াবাদের বিজেপি বিধায়ক ।

নন্দকিশোর লিখেছেন, একদিকে ভারতের হৃত গৌরব পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু অন্যদিকে দেশের সংস্কৃতিকে নিচু করে দেখাচ্ছে এমন সব অনুষ্ঠান। সম্প্রতি বিগ বসের একটি সাদা-কালো ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। দাবি করা হয়, ছবির পুরুষটি একজন কাশ্মীরি মুসলমান ও মহিলাটি এক জন ব্রাহ্মণ। লাভ জিহাদ-কে উস্কানি দিচ্ছে বিগ বস —এমনও দাবি করা হয়েছে।

জানা গেছে, ওই ছবিটি চার বছর আগের পুরোনো। ২০১৫ সালে বিগ বস, সিজন ৯-এর সময়কার ওই ছবি। ছবিতে সুয়ষ রাই ও কিশওয়ার মার্চেন্টকে চুম্বনরত অবস্থায় দেখা গিয়েছে।

এর আগে রিয়েলিটি শো বিগ বস বন্ধের দাবিতে আগেও সরব হয়েছিল একাধিক সংগঠন। গাজিয়াবাদ প্রশাসনকে স্মারকলিপি দিয়েছিল ব্রাহ্মণ মহাসভা। অনুষ্ঠান বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত শস্য দানা মুখে না খাওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছেন নবনির্মাণ সেনার উত্তরপ্রদেশের সভাপতি অমিত জানি। দাবি না মানা পর্যন্ত তিনি ফল ও সবজি খেয়েই থাকবেন বলে জানিয়েছেন।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
     
Website Design and Developed By Engineer BD Network