১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

শিরোনাম
ঈদের আগেই শ্রমিকদের বেতন বোনাস পরিশোধ করে শ্রমিকদের সাথে সহনশীল আচরণ করুন – পীর সাহেব চরমোনাই কুয়াকাটার সৈকতে ভেসে এসেছে বিশাল এক মৃত ডলফিন গ্রাম পুলিশ হত্যাকান্ডের পর অসহায় পরিবারের পাশে নেই প্রশাসন পাল্টে যাচেছ চরফ্যাশনের গ্রামীণ জনপদ : সন্ধ্যা নামলেই সৌর বাতি সুগন্ধা নদীর ভাঙ্গন প্রতিরোধে চলমান প্রকল্প পরিদর্শন করলেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী বরিশালে দেড় হাজার কর্মহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা সামগ্রী বিতরণ আমতলীর বারী মুগডাল-৬ জাপানে রপ্তানী বন্ধ কুয়াকাটার ধুলাসার ইউপি চেয়ারম্যান : মসজিদের টাকায় পারিবারিক কবরস্থান নির্মাণ ডিআরইউ’র সদস্যদের জন্য স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান স্বেচ্ছাসেবক লীগের

ব্রিজ আছে রাস্তা নেই

আপডেট: অক্টোবর ১৪, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

রাজিবপুর উপজেলার রাজিবপুর সদর, কোদালকাটি ও মোহনগঞ্জ তিনটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। উপজেলা সদর থেকে মোহনগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত সাত কিলোমিটার এলাকার সংযোগের জন্য মাত্র একটি রাস্তা। গেল বন্যায় পানির স্রোতে রাস্তাটি হয়ে গেছে খানাখন্দ। পরিণত হয়েছে মরণ ফাঁদে। যেখানে হেঁটে চলাচল ছাড়া বিকল্প কোনো উপায় নেই।
উপজেলা সদর থেকে ৩ কিলোমিটার পরে দিয়ারারচর কোনাচি পাড়া রয়েছে একটি খাল। খালের দক্ষিণ প্রান্তে দিয়ারারচর কোনাচি পাড়া, হাজী পাড়া, ফকির পাড়া, মুন্সি পাড়া, গোয়ালপাড়া, ব্যাপারী পাড়া, চর নেওয়াজী, ঢাকাইয়া পাড়া, মেম্বার পাড়াসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম। এসব গ্রামে প্রায় ২০ হাজার লোকের বসবাস। এখানে রয়েছে মোহনগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ, ইউনিয়ন ভূমি অফিস, ৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২টি বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১টি কামিল মাদ্রাসাসহ সরকারি বেসরকারি স্থাপনা।
এলাকাবাসীর দাবির মুখে বর্তমান সরকার প্রায় ৩১ লাখ টাকা ব্যয়ে খালের ওপর নির্মাণ করেছে ৪০ ফুটের একটি ব্রিজ।

বর্তমানে ব্রিজটি খালের ওপর অথর্বের মতো দাঁড়িয়ে খালের সৌন্দর্য বৃদ্ধি ছাড়া অন্য কোনো কাজে আসছে না ওইসব এলাকার মানুষের। সরেজমিন দেখা গেছে, ব্রিজের এপার-ওপারে নেই কোনো রাস্তাঘাট। এ নিয়ে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে দুই পারের কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ সাধারণ জনগোষ্ঠী। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদেী হাসান জানান, ব্রিজ এবং এলাকা পরিদর্শন করেছি, ওই এলাকার রাস্তাঘাটের অবস্থা বন্যার কারণে ক্ষতি হয়েছে। মানুষজন ভোগান্তিতে আছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে। রাস্তা নির্মাণের বিষয়ে জানতে চাইলে রাজিবপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আজিজুর রহমান জানান, ‘ব্রিজটি চালু করা হয়েছে। বন্যার কারণে রাস্তা মেরামত সম্ভব হয়নি। তবে ২০১৯-২০ অর্থ বছরের মধ্যেই ঐ এলাকার রাস্তাঘাট সংস্কার করা হবে।’

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
 
Website Design and Developed By Engineer BD Network