১৬ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

রোগীকে অজ্ঞান করে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, অতঃপর…

আপডেট: অক্টোবর ২০, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

প্রথমে রোগীকে অজ্ঞান করে ধর্ষণ। পরে সেই ভিডিও প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে দিনের পর দিন অত্যাচার চালানোর অভিযোগে ৫৮ বছরের এক চিকিৎসককে গ্রেফতার করল ভারতের মুম্বাই পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, মুম্বাইয়ের যোগেশ্বরী এলাকার বাসিন্দা ওই নির্যাতিতা ২০১৫ সালের মে মাসে বংশরাজ দ্বিবেদী নামের চিকিৎসকের কাছে গিয়েছিলেন। সেই সময় ২৭ বছরের ওই নারীকে ইঞ্জেকশন দেন ওই চিকিৎসক। তারপরই ওই নারী জ্ঞান হারান। সেই সময় তাকে ধর্ষণ করে ভিডিও করে রেখেছিলেন ওই চিকিৎসক। সংজ্ঞা না থাকায় বিষয়টি বুঝতে পারেননি তিনি। সে দিন চিকিৎসা করিয়ে বাড়ি ফিরে আসেন ওই নারী। তার পরই তার ফোনে একটি ভিডিও ক্লিপ আসে।
নির্যাতিতার দাবি, সেই ভিডিওনেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখান ওই চিকিৎসক। সেই সঙ্গে তার সঙ্গে নিয়মিত যৌন সংসর্গ করার জন্যও চাপ দেন। ওই ভিডিও দেখিয়ে চিকিৎসক তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন বলেও পুলিশকে জানিয়েছেন ওই নির্যাতিতা নারী।

গত বছর ডিসেম্বরে বিয়ে হয় ওই মহিলার। কিন্তু বিয়ের পরও ওই চিকিৎসক ফের শারীরিক সম্পর্কের জন্য চাপ দেন। রাজি না হওয়ায় ৩ অক্টোবর তার স্বামীর মোবাইলে ভিডিওটি পাঠিয়ে দেন অভিযুক্ত চিকিৎসক। তখন স্বামীকে গোটা ঘটনা খুলে বলেন ওই নারী। তার পর মেঘওয়াদি থানায় অভিযুক্ত চিকিৎসকের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়। এর পরই ওই অভিযুক্ত চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাকে আপাতত পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়েছে।

সূত্র: আনন্দবাজার

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
   
Website Design and Developed By Engineer BD Network