১০ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

বিদ্যুৎস্পৃষ্টে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু

আপডেট: অক্টোবর ২১, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

যাত্রাবাড়ীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে স্বামী-স্ত্রী মারা গেছেন। শনিবার ভোরে যাত্রাবাড়ীর কোনাপাড়া আলামিন রোডের একটি টিনশেট বাসায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন জাহাঙ্গীর আলম ও তার স্ত্রী আকলিমা বেগম। জাহাঙ্গীর আলমের গ্রামের বাড়ি পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানি উপজেলার বালিপাড়া গ্রামে। তিনি পেশায় রিকশাচালক ও রাজমিস্ত্রি। আকলিমা ছিলেন গৃহবধূ।

যাত্রাবাড়ী থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম জানান, ওই বাসায় ১০-১২টি টিনশেট রুম আছে। সেখানে দুটি রুম ভাড়া নিয়ে জাহাঙ্গীর ও আকলিমা দুই ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে থাকতেন। রুমের বাইরে গণবাথরুম।

শনিবার ভোরে আকলিমা গোসল করতে যান। ঝুঁকিপূর্ণভাবে বাথরুমে বিদ্যুতের লাইন নেয়া ছিল। গোসল করার সময় অসাবধানতাবশত আকলিমা বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। তাকে বাঁচাতে গেলে জাহাঙ্গীরও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন।

যাত্রাবাড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহীনুর রহমান জানান, অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে কর্র্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য ওই দম্পতির লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) মর্গে রয়েছে।

জাহাঙ্গীরের ছেলে ফোরকান জানান, তার মা টিনশেড বাথরুমে গোসল করতে গিয়েছিলেন। সেখানে ওপর থেকে জিআই তার ছিটকে তার গায়ে পড়লে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। চিৎকার শুনে বাবা তাকে বাঁচাতে গেলে তিনিও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন।

বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দম্পতি নিহত হওয়ার ঘটনায় এলাকাবাসী বিক্ষোভ-ক্ষোভ করেছেন। পরে পুলিশ গিয়ে বাড়ির কেয়ারটেকারকে আটক করে থানায় নিয়ে এলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এলাকাবাসী জানান, বাড়িওয়ালা জসিম উদ্দিন বিদেশে থাকায় তার বাড়ি দেখাশোনা করেন তার বোন হাসিনা বেগম। টিনশেট বাড়িটির বিদ্যুৎ লাইনের তারগুলো এলোমেলো অগোছালো ছিল।

বাড়ির কেয়ারটেকার হাসিনা বেগম বলেন, বাড়িটি অনেকদিনের পুরনো। তাই বাড়িটি ভেঙে নতুন করে তৈরির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ জন্য ভাড়াটিয়াদের একাধিকবার চলে যাওয়ার জন্য বলা হলেও তারা যাননি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
   
Website Design and Developed By Engineer BD Network