২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

শিরোনাম
তেলবাহী লড়ি উল্টে গিয়ে আগুন লেগে এক জনের মৃত্যু। ভূমি বিষয়ক তথ্যাদি স্কুলের পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করো হয়েছে-ভূমিমন্ত্রী মির্জা ফকরুলরা তারেক জিয়ার নির্দেশে জনগনের সাথে প্রতারনা ও তামশা করছে-আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিগ বার্ড ইন কেইজ: ২৫ শে মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুর গ্রেফতার  ঢাবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে ১ কোটি টাকার বৃত্তি ফান্ড গঠিত হাইকোর্টের রায়ে ডিন পদে নিয়োগ পেলেন যবিপ্রবির ড. শিরিন জয় সেট সেন্টার’ থেকে মিলবে প্রশিক্ষণ, বাড়বে কর্মসংস্থান: পীরগঞ্জে স্পীকার বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস আগামীকাল টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী, সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী সাদি মোহম্মদ আর নেই

অ্যাম্বুলেন্স না পেয়ে পথেই মারা গেলেন জনপ্রিয় নায়িকা

আপডেট: অক্টোবর ২৩, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

প্রসব বেদনায় কাঁতড়াচ্ছিলেন। দ্রুত হাসপাতালে নেয়ার জন্য দৌঁড়ঝাপ করলেন পরিবারের সদস্যরা।

কিন্তু অনেক চেষ্টা করেও হাসপাতালে নেয়ার জন্য একটি অ্যাম্বুলেন্স সময়মতো জোগাড় করতে ব্যর্থ হন তারা।

এর পর অ্যাম্বুলেন্স পেলেও অনেক দেরি হয়ে যায়। হাসপাতালে নেয়ার পথেই মারা গেলেন নায়িকা।

রোববার (২০ অক্টোবর) ভোর সাড়ে ৬টায় ভারতে মুম্বাই থেকে ৫৯০ কিলোমিটার দূরে মহারাষ্ট্রের হিঙ্গোলি জেলায় এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে।

সেখানে অ্যাম্বুলেন্সের অভাবে সময় মতো হাসপাতালে যেতে না পারায় মারা গেছেন ২৫ বছর বয়সী পূজা জুঞ্জর নামের এই নায়িকা। মারাঠি সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন তিনি।

পূজা জুঞ্জরের পরিবারের দাবি, সময়মতো একটি অ্যাম্বুল্যান্সের খোঁজ পাইনি যেটা পূজাকে হাসাপাতালে নিয়ে যাবে। অনেক চেষ্টা করে উল্টো সময় নষ্ট করেছি আমরা। ফলে সরকারি হাসপাতালে পৌঁছাতে অনেক দেরি হয়ে যায়। তার আগে রাস্তাতেই মারা যান পূজা।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ওই অভিনেত্রীর বিষয়ে খোঁজ নেয় ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো।

জানা গেছে, শনিবার এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী পূজা জুঞ্জর। আর রোববার ভোরে তার প্রসব বেদনা উঠলে তাকে গোরেগাঁওয়ের এক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে সন্তানও জন্ম দেন পূজা।

কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে ভূমিষ্ঠের কয়েক মিনিটের মধ্যেই শিশুটি মারা যায়। জন্মদাত্রী মা পূজার অবস্থাও সংকটাপন্ন হয়ে ওঠে। তখন স্বাস্থ্যকেন্দ্রটির চিকিৎসক পূজাকে দ্রুত হিঙ্গোলির সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যেতে পরামর্শ দেন।

ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে ওই হাসপাতালে যেতে অ্যাম্বুলেন্স না পাওয়ায় দেরি হয়ে যায়। সন্তানের মৃত্যুর দিনই রাস্তাতে মৃত্যু হয় মায়ের।

অ্যাম্বুলেন্স না পাওয়ার কারণ হিসেবে জানা গেছে, সম্প্রদি মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে উন্মাদনা চলছে। ভোটের উৎসব ঘিরে ব্যস্ত সবাই। তাই এমন পরিস্থিতিতে অ্যাম্বুল্যান্স পাওয়া দুষ্কর হয়ে পড়ে।

সূত্র: এইসময়

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
     
Website Design and Developed By Engineer BD Network