২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার

 

বরিশালে উপকূলবর্তী জনগোষ্ঠীর জন্য অত্যাবশকীয় স্বাস্থ্য সেবার উদ্ধোধন

আপডেট: অক্টোবর ২৪, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরিশাল বিভাগের উপকূলবর্তী ৩ জেলার ৮ উপজেলার সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য অত্যাবশকীয় স্বাস্থ্য সেবা প্রকল্পের উদ্ধোধন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর বান্দ রোডের হোটেল গ্র্যান্ড পার্কের বলরুমে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী।
উপকূলবর্তী জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে এই প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়।

বরিশাল বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. আব্দুর রহিমের সভাপতিত্বে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বরগুনার জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন এবং ইউকে এইড এর কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ জুডিথ হারবার্টসন।

উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা পিএইচডি’র ভাইস চেয়ারম্যান ইফতেখারুল হক চৌধুরী।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উন্নয়ন সংস্থার ডিএফআইডি’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার ফৌজিয়া নাসরিন, ইএইচডি কনসোর্টিয়ামের ডিরেক্টর সিনা ম্যাকক্যান, পিএইচডি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর আব্দুস সালাম।

এছাড়া স্বাস্থ্য বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থা ও সুশীল সমাজ প্রতিনিধি এবং সাংবাদিকবৃন্দ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বিভিন্ন ডিজিটাল ও উদ্ভাবনী কৌশলের মাধ্যমে বরিশাল বিভাগের উপকূলবর্তী পটুয়াখালী জেলার সদর উপজেলা, কলাপাড়া ও গলাচিপা, বরগুনা সদর উপজেলা ও পাথরঘাটা এবং ভোলা সদর, চরফ্যাশন ও মনপুরা উপজেলার মানুষের, বিশেষ করে সুবিধাবঞ্চিত ও প্রতিবন্দ্বী ব্যক্তিদের অত্যাবশ্যকীয় স্বাস্থ্য সেবার আওতায় এনে স্বাস্থ্য সেবা, পরিবার-পরিকল্পনা ও পুষ্টি সেবার উন্নয়নের একটি টেকসই মডেল নির্ধারণ ও বাস্তবায়ন করা এই প্রকল্পের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।

কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইডের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ইউকে এইড এর অর্থায়নে সাড়ে ৩ বছর মেয়াদী এই প্রকল্প বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সিএমবি, আইসিডিডিআরবি, এলপিএএস, ডিআরআরএ, আরএইচএসটিইপি, টেলিনর হেল্থ এর সহায়তায় পার্টনারস ইন হেল্থ এন্ড ডেভলপমেন্ট (পিএইচডি) বরিশাল বিভাগের ৮ উপজেলায় বাস্তবায়ন করছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মোহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী বলেন, উপকূলবর্তী সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবা সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে সরকারি এবং বেসরকারি সংস্থার সমন্বিত প্রচেষ্টা প্রয়োজন। প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সুবিধা প্রাপ্তির হার বাড়াতে নতুন এই প্রকল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি আশা করেন।

অনুষ্ঠানে ইউকে এইড এর কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ জুডিথ হারবার্টসন বলেন, অঙ্গীকারবদ্ধ উন্নয়ন অংশীদার হিসেবে যুক্তরাজ্য স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা করে চলছে। এই প্রকল্প সুবিধাবঞ্চিতদের জন্য অতিপ্রয়োজনীয় এবং টেকসই স্বাস্থ্য সেবা প্রদানে স্থানীয় স্বাস্থ্য সেবা কর্তৃপক্ষ এবং জনপ্রতিনিধিদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবে। এছাড়া প্রতিবন্দ্বীসহ উপকূলীয় অঞ্চলের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের স্বাস্থ্যের উপর জলবায়ু পরিবর্তন ও পরিবেশগত অবক্ষয়ের প্রভাব থেকে মোকাবেলা করতে এই প্রকল্প সহায়তা করবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
 
Website Design and Developed By Engineer BD Network