১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার

শিরোনাম
হু হু করে বাড়ছে তিস্তার পানি নদীপাড়ে আতঙ্ক বিরাজ সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের সাভানা পার্ক পরিদর্শনে দুদক প্রতিনিধি দল, সাংবাদিকদের বাঁধা পার্ক কর্তৃপক্ষের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র না তবুও ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল্লা-হিল-গালিব সাভারের ট্রাক চাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত ইন্দোনেশিয়ায় বাংলাদেশী যুবক ওমর ফারুক জয়ের স্বর্ণ জয় এ অঞ্চল সবসময় দুর্যোগ প্রবন, তাই আপনাদের পাশে দাড়িয়েছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তেলবাহী লড়ি উল্টে গিয়ে আগুন লেগে এক জনের মৃত্যু। ভূমি বিষয়ক তথ্যাদি স্কুলের পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করো হয়েছে-ভূমিমন্ত্রী মির্জা ফকরুলরা তারেক জিয়ার নির্দেশে জনগনের সাথে প্রতারনা ও তামশা করছে-আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক

অক্সফোর্ড মিশন স্কুলের কোটির টাকার দুর্নীতির তদন্ত শুরু : নথিপত্র তলব

আপডেট: নভেম্বর ২১, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বরিশালের ঐতিহ্যবাহি অক্সফোর্ড মিশন হাই স্কুল ও প্রাইমারী স্কুলের কোটি টাকা দুর্নীতি তদন্তে মাঠে নেমেছে তদন্ত টিম। এসময় তারা স্কুলের আয়-ব্যায়সহ সকল নথিপত্র তলব করেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় বরিশাল জেলা শিক্ষা অফিস থেকে এই তদন্ত কমিটি স্কুলে আসে।
স্কুল সূত্রে জানা গেছে, প্রভাব খাটিয়ে মিশনের দুইটি স্কুলের প্রায় কোটি টাকা স্কুল ফান্ড থেকে ফাদার ফ্রান্সিস পান্ডে ও ফাদার জন হালদার উত্তোলন করে নেয়। এ ঘটনায় স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারীরা ফাদার ফ্রান্সিস ও জন এর বিরুদ্ধে ডেপুটি মডারেটর বিশপ সৌরভ ফলিয়া কাছে গত ১৮ নভেম্বর সুনির্দিষ্টভাবে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। এ ঘটনায় রিপোর্ট একাত্তরে রিপোর্ট প্রকাশের পর জেলা শিক্ষা অফিস থেকে এই তদন্ত টিম প্রেরণ করা হয়েছে। তদন্ত টিম স্কুলের আয়-ব্যায়, শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন ভাতা, শিক্ষার্থীদের পরিসংখ্যান, বার্ষিক আয়-ব্যায়, স্কুল ফান্ডের বর্তমান অবস্থাসহ বিভিন্ন হিসাব তলব করেছে তদন্ত টিম। স্কুলের প্রধান শিক্ষক পলিনুস গুডার মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় স্কুলের একজন সহকারী শিক্ষক বলেন, স্কুলে উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার আসছিল। তিনি স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীর পরিসংখ্যান, স্কুলের আয়-ব্যয় এর হিসাব চেয়েছেন।
এব্যাপারে বরিশাল সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাসরিন জোবায়দা বলেন, ‘একাডেমিক সুপারভাইজার সুচীত্রা বিশ্বাসকে অক্সফোর্ড মিশন হাই স্কুলে পাঠানো হয়েছিল। জেলা শিক্ষা অফিসারের নির্দেশে স্কুলের সকল হিসাব নিকাশ চাওয়া হয়েছে। সেগুলো বিশ্লেষন করে তদন্ত রিপোর্ট দিবে একাডেমিক সুপারভাইজার। আর সেই তদন্তের উপর নির্ভর করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ ##

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
     
Website Design and Developed By Engineer BD Network