৩০শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

যে ৫ খাবারে মৃত্যু!

আপডেট: নভেম্বর ২২, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

সুস্থ থাকতে হলে যেমন নিয়মিত খাবার খাওয়া প্রয়োজন, তেমনি কিছু খাবার রয়েছে যা খেলে অসুস্থ হয়ে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

বাছাই আর রান্নায় যথাযথ প্রস্তুতি ছাড়া সব খাবার নিরাপদে খাওয়া সম্ভব নয়। আর খাওয়ার আগে সেসব খাবার থেকে বিষাক্ত অংশটি সঠিকভাবে দূর করা প্রয়োজন। -খবর বিবিসি বাংলার।

কিছু খাবার রয়েছে, যা খাওয়ার কারণে গুরুতর অসুস্থতার তৈরি হতে পারে। বমি বমি ভাব থেকে শুরু করে শ্বাসকষ্ট, বিকারগ্রস্ত- এমনকি মৃত্যুও হতে পারে।

আসুন জেনে নিই এমন কিছু খাবার সম্পর্কে–

পটকা মাছ

বিপজ্জনক হলেও পটকা মাছ জাপানে অত্যন্ত দামি ও জনপ্রিয়। পটকা মাছ খুবই ভয়ঙ্কর হতে পারে।

এই মাছের শরীরে টেট্রোডোটক্সিন নামের একটি বিষাক্ত জিনিস থাকে, যা সায়ানাইডের চেয়েও মারাত্মক বলে মনে করা হয়। পটকা মাছের খাবারটি গ্রাহকের প্লেটে দেয়ার আগে এর বিষাক্ত অংশগুলো, যার মধ্যে আছে মস্তিষ্ক, চামড়া, চোখ, ডিম্বাশয়, যকৃত ও অন্ত্র দূর করে ফেলতে হবে।

কাসু মারজু পনির

এই খাবারের ভেতরে থাকে পোকামাকড়। ইতালির সারডিনিয়ায় এর অনেক ভক্ত রয়েছে।

পেকোরিনো পনিরের সঙ্গে কীটের লার্ভা মিশিয়ে কাসু মারজু পনির তৈরি করা হয়। যার সঙ্গে পারমায় তৈরি করা পনিরের সঙ্গে ঘ্রাণ ও ঘনত্বের দিক থেকে মিল রয়েছে।

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পনিরটিকে নরম করে তোলে কীটগুলো। সুতরাং যখন এটি খাওয়ার জন্য দেয়া হয়, তখন পনিরের ভেতরটা অনেকটা ঘন তরল হয়ে থাকে।

অনেক সময় বলা হয়, এর স্বাদ অনেকটা গর্জনজোলা পনিরের মতো। কীটপতঙ্গের উপাদান যুক্ত হওয়ার কারণে কাসু মারজুর শক্তিশালী এবং স্বাতন্ত্র্য স্বাদ রয়েছে। কিন্তু এটির স্বাদ নেয়ার সময় কয়েকটি বিষয় বিবেচনায় রাখা দরকার।

প্রথমত

পোকাগুলোকে ধরতে আপনাকে ত্বরিতগতি সম্পন্ন হতে হবে। পনিরের কোনো অংশ খাওয়ার সময় এসব পোকা ১৫ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বাতাসে লাফ দিতে পারে।

দ্বিতীয়ত

ইউরোপীয় ইউনিয়নের অনুমোদিত খাদ্য তালিকার ভেতরে কাসু মারজু নেই, ফলে এটি রফতানি করা যায় না।

তৃতীয়ত

কাসু মারজুকে অনেক সময় বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক পনির বলে বর্ণনা করা হয়। কারণ এটায় স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে।

রুবার্ব

ব্রিটিশ রন্ধনশিল্পের মতো অনেক রান্নাতেই রুবার্ব ডাঁটা বেশ জনপ্রিয়। অনেক জনপ্রিয় ব্রিটিশ মিষ্টান্ন অথবা পানীয় প্রস্ততকারক তাদের খাবারের উপাদান হিসেবে এটি ব্যবহার করে থাকেন।

কিন্তু রুবার্ব ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনাকে বিশেষভাবে সতর্ক হতে হবে। কারণ ডাঁটার সঙ্গে যে সবুজ পাতাগুলো আসে, সেটার ভেতর বিষ থাকে। এই খাবার না খাওয়াই ভালো।

সয়াবিনের সঙ্গে রেড বিনস

কাঁচা রেড বিনে এমন একটি উপাদান রয়েছে, যা দূর করা না হলে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। মটরশুঁটি আর শিমজাতীয় খাবারগুলো স্বাস্থ্যের জন্য ভালো বলেই সাধারণত মনে করা হয়। কিন্তু বেশ কয়েকটি প্রজাতি রয়েছে, যদি আপনি সেগুলো ভালোভাবে প্রস্তুত না করেন, তা হলে আপনাকে অসুস্থ করে ফেলতে পারে।

জয়ফল

বেশি পরিমাণে জয়ফল খেলে মনোরোগ দেখা দিতে পারে। বিখ্যাত এই মসলাটি আসে ইন্দোনেশিয়ার স্থানীয় একটি গাছ থেকে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
   
Website Design and Developed By Engineer BD Network