১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার

শিরোনাম
ঈদের আগেই শ্রমিকদের বেতন বোনাস পরিশোধ করে শ্রমিকদের সাথে সহনশীল আচরণ করুন – পীর সাহেব চরমোনাই কুয়াকাটার সৈকতে ভেসে এসেছে বিশাল এক মৃত ডলফিন গ্রাম পুলিশ হত্যাকান্ডের পর অসহায় পরিবারের পাশে নেই প্রশাসন পাল্টে যাচেছ চরফ্যাশনের গ্রামীণ জনপদ : সন্ধ্যা নামলেই সৌর বাতি সুগন্ধা নদীর ভাঙ্গন প্রতিরোধে চলমান প্রকল্প পরিদর্শন করলেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী বরিশালে দেড় হাজার কর্মহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা সামগ্রী বিতরণ আমতলীর বারী মুগডাল-৬ জাপানে রপ্তানী বন্ধ কুয়াকাটার ধুলাসার ইউপি চেয়ারম্যান : মসজিদের টাকায় পারিবারিক কবরস্থান নির্মাণ ডিআরইউ’র সদস্যদের জন্য স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান স্বেচ্ছাসেবক লীগের

ভয়াবহ ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকিতে ঢাকা

আপডেট: ডিসেম্বর ৬, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বলেছেন, অন্যতম দ্রুত বর্ধনশীল ও পৃথিবীর ঘন জনবসতিপূর্ণ শহরগুলোর একটি ঢাকা। এটি অপরিকল্পিতভাবে এগোচ্ছে। অপরিকল্পিত এ নগরায়নে ভূমিকম্প হলে ভয়াবহ ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকিতে রয়েছে এ নগরী। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

দ্য আরবান থিঙ্কারস ক্যাম্পাস (ইউটিসি) শীর্ষক এ আয়োজন করে বুয়েট। ইউএন-হ্যাবিট্যাটের আওতাধীন ওয়ার্ল্ড আরবান ক্যাম্পেইনের (ডব্লিউইউসি) সহযোগী সদস্য এ প্রতিষ্ঠানটি টানা তৃতীয়বারের মতো এ আয়োজন করল।

বুয়েট ভিসি অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলামের সভপতিত্বে সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য দেন বুয়েট স্থাপত্য বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. নাসরীন হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আর্কিটেক্টস ইন্সটিটিউটের সভাপতি স্থপতি জালাল আহমেদ। সম্মেলনে নির্ধারিত বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন অধ্যাপক ড. শায়ের গফুর, অধ্যাপক ড. ফারিদা নিলুফা ও অধ্যাপক ড. খন্দকার সাব্বির আহমেদ।

সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঢাকাসহ দেশের কিছু অঞ্চল ভূমিকম্প ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। সিবিএফবির ২০০৯-এর পরিসংখ্যান অনুযায়ী ঢাকাতে যদি ৬ মাত্রার ভূমিকম্প হয় তাহলে এ শহরের শতকরা ৫৬ ভাগ ভবন ধসে পড়বে, ৫ শতাংশ জিডিপি হারাবে। এ পরিসংখ্যান করা হয়েছিল ১০ বছর আগে। কিন্তু বর্তমানে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এর প্রায় দ্বিগুণ হবে। তাই আমাদের জরুরিভাবে কাঠামোগত কার্যকর পরিমাপ এবং উপযুক্ত সাড়া দান পদ্ধতির দিকে গুরুত্ব দিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এখনই আমাদের উপযুক্ত সময় যে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য ঢাকা শহরকে পরিবেশবান্ধব, সবার বসবাস উপযোগী করে তোলার প্রচেষ্টা চালানোর। অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম বলেন, আমি আশা করি আমাদের এ সম্মেলন শেষে আমরা বিভিন্ন এক্সপার্টদের মাধ্যমে কিভাবে ভালো একটি ভালো শহর, পাশাপাশি একজন ভালো নাগরিক হওয়া যায় তার নির্দেশনা পাব।

এ সম্মেলনের শিরোনাম ‘অ্যাপ্রোচ টু ইন্টার-স্কেলার রেজিলিয়েন্স-সেটেলমেন্ট লিংকেজ’। হাউজিং অ্যান্ড সেটেলমেন্ট, আরবান ডিজাইন অ্যান্ড ল্যান্ডস্কেপ ও এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড এনার্জি- এ তিন প্রাসঙ্গিক বিষয়ের সম্মেলনে আলোচনা চলছে। অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে স্থাপত্য বিভাগ প্রাঙ্গণে ৬-৮ ডিসেম্বর ৩ দিনব্যাপী প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
 
Website Design and Developed By Engineer BD Network