১৭ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

বরিশালে মুক্তিযোদ্ধার নাম রাজাকারের তালিকায় আসায় বিক্ষোভ-অগ্নিসংযোগ

আপডেট: ডিসেম্বর ১৭, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরিশালে মুক্তিযোদ্ধা তপন চক্রবর্তীর ও তার পরিবারের সদস্যদের রাজাকারের তালিকায় অন্তভূক্ত করায় বিক্ষোভ

রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে বাসদ বরিশাল জেলার সদস্য সচিব ডা. মনীষা চক্রবর্তীর বাবা মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. তপন কুমার চক্রবতী এবং দাদী শহীদ জায়া উষা রানী চক্রবর্তীকে রাজাকার তালিকাভূক্ত করার প্রতিবাদে এবং ভূয়া তালিকা বাতিল সহ ভুল সংবলিত তালিকা প্রণয়নে জড়িতদের শাস্তির দাবীতে নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল প্রতিবাদ সভা প্রচারিত তালিকায় অগ্নি সংযোগ করা সহ এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আওয়ামীলীগ ও সরকারের বিরুদ্ধে ফুসে উঠেছে সাধারন জনতা।

আজ মঙ্গলবার (১৭ই) ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ১১টায় নগরীর প্রান কেন্দ্র সদররোডে এক প্রতিবাদ সভায় মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. তপন কুমার চক্রবর্তী বলেন আজ আওয়ামীলীগ সরকার বিজয় দিবসে আজ ৪৮ বছর পর একজন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে রাজাকারের তালিকায় নাম প্রকাশ করে ঘৃনার জন্ম দিয়েছে।

তাই অভিলম্বে এই প্রকাশিত তালিকা সম্পূর্ণ রুপে বাতিল করা সহ তালিকা প্রনয়নকারীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন।

বাসদ জেলা আহবায়ক ইমরান হাবীব রুমনের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বাসদ সদস্য সচিব মুক্তিযোদ্ধা তপন চক্রবর্তীর কণ্যা ড. মনীষা চক্রবতী,কমিউনিস্ট পার্টি জেলা সভাপতি এ্যাড.একে আজাদ,গণ সংহতি আন্দোলন জেলা আহবায়ক দেওয়ান আঃ রসিদ নিলু,শ্রমীকনেতা দুলাল মল্লিক,জেলা ছাত্রফেডারেশন আহবায়ক নবীন আহমেদ, বিপ্লব দাস,সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট আহবায়ক শন্তু মিত্র প্রমুখ।

এর পূর্বে সকাল ১১ টায় নগরীর ফকিরবাড়ি রোডস্থ বাসদ জেলা কার্যলয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বাসদ সদস্য সচিব ডা.মনীষা চক্রবর্তী এ্যাড. তপন কুমার চক্রবর্তী বলেন বরিশাল জেলা বাসদ সদস্য সচিব ডা.মনীষা চক্রবর্তীর উপর সম্পূর্ণরুপে উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর একজন গ্রেজেটেট মুক্তিযোদ্ধা এবং তার ঠাকুরদা এ্যাড. সুধীরকুমার চক্রবর্তী মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানি মেলেটারির হতে শহীদ হন।

মনীষা চক্রবর্তীর বাবা মুক্তিযোদ্ধা তপন কুমার চক্রবর্তীকে রাজাকারের তালিকায় ৬৩ ও ঠাকুমা শহীদ সুদীর কুমার চক্রবর্তীর স্ত্রী উষা রানী চক্রবর্তীতে রাজাকারের তালিকায় ৪৫ নম্বরে অন্তভূক্ত করা হয়েছে।

এই তালিকা করার মাধ্যমে একটি শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পারবারকে নয় সারা দেশের মুক্তিযোদ্ধাদেরকে অপমানিত করা হয়েছে।

এসময় এক প্রর্যায়ে তপন চক্রবর্তী,ডা. মনূষা চত্রবর্তী,ইমরান হাবীব রুমন সহ বিক্ষুদ্ধ জনতা রাজাকারের তালিকা প্রকাশিত কাগজগুলো অগ্নি সংযোগ করে।

সংবাদ সম্মেলনে তারা আরো বলেন,গত বরিশাল সিটি নির্বাচনে গণমানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াই-সংগ্রামে ছাত্র আন্দোলন,নারী নির্যাতন বিরোধী আন্দোলন,শ্রমীক আন্দোলন,বস্তিবাসীদের আন্দোলন,পরিবেশ রক্ষা করার আন্দোলন সহ বরিশালের সর্বস্তরের মানুষের দাবী-দাওয়া নিয়ে বরিশাল বাসদ ধারাবাহিকভাবে আন্দোলন করার কারনেই শাষক লের রেষানলে বিভিন্ন সময়ে পড়তে হয়েছে।

এরই ধারাবহিকতার কারনে ডা. মনীষা চক্রবর্তীর পরিবারের সদস্যদের রাজাকারের তালিকায় অর্ন্তভূক্তিকরণের মাধ্যমেই কন্ঠরোধের প্রয়াসের একটি নগ্ন ও নাক্কারজনক রপ বলে তারা মনে করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. তপন কুমার চক্রবর্তী, বাসদ জেলা আহবায়ক ইমরান হাবীব রুমন,বরিশাল রিক্সা ভ্যান চালক শ্রমীক ইউনিয়ন সভাপতি দুলাল মল্লিক,শহীদুল ইসলাম,সন্তমিত্র, মাফিয়া বেগম,জাহাঙ্গীর হোসেন দিদার ও বাবুল তালুকদার।

পরে নগরীতে এক বিক্ষোভ মিছিল বের করে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সদররোডে এসে শেষ করে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন