২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

 

কে এই নতুন বিপিএল গার্ল নীল হুরেরজাহান

আপডেট: ডিসেম্বর ১৯, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

চলছে বিপিএলের সপ্তম আসর।

সঞ্চালনায় এবার নেই পিয়া জান্নাতুল, আছেন শ্রাবণ্য তৌহিদা ও সামিয়া আফরিন।

সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন নীল হুরেরজাহান।

নিজস্ব প্রতিবেদক : জিটিভির হয়ে উপাস্থপনা শুরু করেছিলেন বছর দেড়েক আগে। এই সময়ের মধ্যে চলা ক্রিকেট সিরিজগুলোতে প্রায়ই তাঁকে উপস্থাপনায় দেখা গেছে। এবারই প্রথম সুযোগ পেলেন বিপিএলে। ‘স্টেডিয়ামে থেকে লাইভ করাটা নতুন এক অভিজ্ঞতা। ঢাকা পর্বের মাত্র চারটা দিন গেল। এই অল্প সময়েই দারুণ সাড়া পেয়েছি। পরিচিতিটাও বেড়েছে। দারুণ উপভোগ করছি’—বললেন নীল।

এবারের বিপিএল কেমন দেখছেন? ‘আগেরবার যেহেতু ছিলাম না, তুলনাটা করতে পারব না। তবে দর্শক বিবেচনায় বলব, আগেরবারেরটা বেশি জমজমাট ছিল। আশা করছি, ধীরে ধীরে মানুষের আগ্রহ বাড়বে। আগামী দিনে জাতীয় ক্রিকেট দলে কারা সুযোগ পেতে পারে, এই লিগ দেখলে দর্শক তার একটা ধারণা পাবেন। এটা তো প্লেয়ার নির্বাচনের প্ল্যাটফর্মও।’ প্রথম পর্বের চার দিনে দুদিন স্টেডিয়ামে উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ ও বাইরের প্লেয়ারদের সঙ্গে কথা হয়েছে।

২০১৪ সালে ‘সিটি এফএম’ রেডিওতে আরজেগিরি দিয়ে শুরু। সেখানে ছিলেন মাত্র ছয় মাস। ভার্সিটির ফার্স্ট ইয়ার তখন। ভার্সিটির বন্ধুদের নিয়ে একটা আড্ডার অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন বন্ধুদের নিয়ে। ‘সিটি এফএম’ কর্তৃপক্ষই তাঁকে আরজে হওয়ার প্রস্তাব দেয়। রাজিও হয়ে গেলেন।

পরের বছর জানুয়ারি থেকে বাংলাভিশনের অনুষ্ঠান উপস্থাপনা শুরু করেন। টানা চার বছর করেছেন বাংলাভিশনের ‘দিন প্রতিদিন’, ‘সকাল বেলার রোদ্দুর’, ‘মিউজিক ক্লাব’। ‘পরে এনটিভি, আরটিভির বিভিন্ন অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেছি। তখনই জিটিভি থেকে স্পোর্টস শো করার জন্য ডাক এলো। সেখান থেকে বিপিএল’—বললেন নীল।

বেশ কিছু বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হয়েছেন। ‘ক্লোজআপ কাছে আসার অসমাপ্ত গল্প’, ‘রুচি চানাচুর,  গ্রামীণফোন, আকিজ, প্রাণ, স্যামসাং মোবাইল, ম্যাগি নুডলসের বিজ্ঞাপন করেছেন। সামনেই প্রচার শুরু হবে মিনিস্টার ফ্রিজের একটি বিজ্ঞাপনচিত্র।

বিপিএলের পাশাপাশি এখন করছেন ‘নিউজ ২৪’-এর প্রতিদিনকার এন্টারটেইনমেন্ট শো ‘ইটস অ্যামেজিং’, রাত ১১টায়। মুভি, মিউজিক, লাইফস্টাইলের খবরাখবর জানানো হয় এই শোতে। এ ছাড়া করছেন নাগরিক টেলিভিশনের ‘আনন্দ বৈঠক’ ও চ্যানেল নাইনের একটি শো।

জন্ম ও বেড়ে ওঠা সিলেটে। ঢাকায় এসে কলেজে ভর্তি হয়েছেন। অভিনয় করতেও ভালোই লাগে তাঁর। তবে করার সুযোগ হয় না। “যখন বাংলাভিশন থেকে গ্যাপ নিয়েছিলাম। তখন টুকটাক অভিনয় করেছিলাম। পরীক্ষামূলক বদরুল আনাম সৌদের নাটক ‘অক্ষর থেকে উঠে আসা মানুষ’ করেছিলাম। এরপর মাবরুর রশীদ বান্নাহর ‘চার কাহন’ করি। আরো কিছু নাটক করেছি, তবে সেগুলো উল্লেখ করার মতো নয়। অভিনয়ে খুব একটা সময় দিতে পারি না। বান্নাহ ভাই পরবর্তী সময়েও বলেছিলেন। এ সপ্তাহেও একজন পরিচালক প্রস্তাব দিয়েছিলেন, যেহেতু বিপিএল চলছে তাই করিনি। আমার রেগুলার শোতেও প্রচুর টাইম দিতে হয়। নাটকের জন্য সময় বের করা কঠিনই। তা ছাড়া উপস্থাপনাটা আমার প্রথম প্রায়োরিটি। এটাই এখন আমার প্রথম পেশা।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
 
Website Design and Developed By Engineer BD Network