৭ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার

 

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার কাণ্ড!

আপডেট: ডিসেম্বর ২০, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

নরসিংদীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক নেতার নেতৃত্বে সন্ত্রাসী হামলায় নারীসহ ৭ জন আহত হয়েছেন। এ সময় বাড়ির গ্যারেজে থাকা মাইক্রোবাসসহ মোট সাতটি গাড়ি ও বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সদর উপজেলার মেহেরপাড়া ইউনিয়নে খালপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের আশঙ্কাজনক অবস্থায় নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় রাতেই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শাহিদ হাসান পাপ্পুসহ মোট ৮ জনকে আসামি করে মাধবদী থানায় মামলা দায়ের করেছেন নির্যাতিতের পরিবার। মামলা দায়ের করায় শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে আবারো হামলা চালায় পাপ্পু। এ হামলায় নাদিম নামে এক যুবক গুরুতর আহত হয়। তাকে গুরুতর অবস্থায় নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পাপ্পু নিজেকে নরসিংদী সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের দফতর সম্পাদক বলে দাবি করেন।

হামলায় আহতরা হলেন সদর উপজেলার মেহেরপাড়া ইউনিয়নে খালপাড় গ্রামের সাদ্দাম হোসেনের স্ত্রী সনিয়া (২০) , আবদুল কুদ্দুসের মেয়ে সেলিনা আক্তার (২৮), সুরিয়া বেগম (৩০), রেহেনা বেগম (২৫), প্রতিবেশী ফকির আলী (৫০), নাদিম হোসেন (২৩), আলমাছ মিয়া (৩৫)। স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে খালপাড়া গ্রামের সাদ্দাম হোসেনের বসত বাড়ি দখল করতে আসেন একই ইউনিয়নের শাহিদ হাসান পাপ্পু। তিনিসহ ১০-১৫ জনের একদল লোক আগ্নেয়াস্ত্রসহ হঠাৎ করে হামলা চালায় সাদ্দামের বসত বাড়িতে।

সে সময় সাদ্দামকে না পেয়ে তার স্ত্রী ও বোনদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে এলাকাবাসী গুরুতর অবস্থায় আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। মামলার বাদী সাদ্দাম হোসেন বলেন, জমি বিক্রি না করায় তারা আমার বাড়ি দখল করতে আসছে। সে জন্যই আমার পরিবারের সবাইকে মেরে হাত, পা, ভেঙে দিয়েছে। গ্যারেজে থাকা সাতটি গাড়ি ও ঘরবাড়ি সব ভাংচুর করেছে।

এ দিকে ঘটনার নিন্দা জানিয়ে মেহেরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহাবুবুল হাসান বলেন, শাহিদ হাসান পাপ্পু একজন সন্ত্রাসী। তার কর্মকাণ্ডে মেহেরপাড়াবাসী অতিষ্ঠ। সাদ্দামের বাড়িতে যে হামলা হয়েছে এটা খুবই অন্যায় কাজ হয়েছে। আমিসহ সবাই তার বিচার চাই। আমি সাদ্দামের পরিবারের পাশে আছি। মেহেরেপাড়া স্বেচ্ছসেবক লীগের সভাপতি আবেদ খান সরকার বলেন, পাপ্পু সদর উপজেলার অনুমোদনহীন কমিটির দফতর সম্পাদক হিসেবে নিজেকে পরিচয় দেয়। তবে সে এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিতি।

এ ব্যাপারে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শাহিদ হাসান পাপ্পুর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। নরসিংদী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শাহেদ আহমেদ বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল ও হাসপাতাল পরিদর্শন করেছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
 
Website Design and Developed By Engineer BD Network