২৩শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

কাঠালিয়ায় এতিমখানা’র ভবন ভাংচুরের অভিযোগ

আপডেট: জানুয়ারি ১৩, ২০২০

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

-ফাইল ছবি

কাঠালিয়া (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি:

ঝালকাঠির কাঠালিয়ার আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে দক্ষিণ চেঁচরী গ্রামের আব্দুল মুত্তালিব তাহফিজুল কোরআন মাদ্রাসা ও এতিমখানা’র ভবন ভাংচুর ও ৩ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

৮ জানুয়ারি রাত ১২টার দিকে প্রতিপক্ষ মোশারেফ হোসেন জমাদ্দার ও তার লোকজন এ ভাংচুরের ঘটনা ঘটিয়েছে অভিযোগ মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের। এ ঘটনায় কাঠালিয়া থানায় একটি লিখিতি অভিযোগ দায়ের করেন মাদ্রাসার পরিচালক এম আর মালেক।

অভিযোগে জানাগেছে, গত বুধবার রাতে স্থানীয় মো. মোশারেফ হোসেন জমাদ্দার, বেল্লাল তালুকদার, শহীদুল ইসলাম জমাদ্দার ও মো. রিপন জমাদ্দারসহ তাদের ১৫/২০ ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে মাদ্রাসার নির্মাণাধীন ভবনের দেয়াল ও পিলার ভাংচুর ও ক্ষতি সাধন করে। এতে প্রায় ৩ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।

এছাড়াও বিভিন্ন সময় মাদ্রাসার জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরধরে মাদ্রাসা ও এতিমখানার ক্ষতি করে আসছে এ চক্রটি। মাদ্রাসা পরিচালকের দাবি ২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত এ মাদ্রাসা সুনামের সাথে পরিচালিত হয়ে আসছে এবং দ্বীনি শিক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা রাখছে।

ইতিপূর্বে জমিজমা সংক্রান্ত কারনে মোশারেফ হোসেনসহ অন্যদের বিরুদ্ধে ৩টি মামলা সি আর ১২৭/২৯, জি আর ৯২/১৯ এবং এম পি ২৫৭/১৯ চলমান রয়েছে। আদালতের এ নির্দেশ অমান্য করে অভিযুক্তরা পেশিশক্তি বলে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে লোহার রড ও হামার দিয়ে মাদ্রাসা ভবন ভাংচুর কার্যক্রম চালায়। এছাড়াও মো. মোসারেফ হোসেন বিভিন্ন সময় জাল দলিল ও পর্চা জালিয়াতির সাথে জড়িত বলেও অভিযোগ এম আর মালেকের।

তবে মোশারেফ হোসেন জমাদ্দার মাদ্রাসার দেয়াল ও পিলার ভাংচুরের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, মাদ্রাসার দেয়াল নরমাল যে কারণে এমনিতেই ভেঙ্গে গেছে।

এছাড়া আমার ভাইর সম্পাত্তি ভয়ভীতি দেখিয়ে জোর পূর্বেক মাদ্রাসার নামে লেখে নিয়েছে এবং আমার জমি ও জোর করে নিতে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। এমনকি আমাদের নামের ৩/৪টি মামলাও করেছে মালেক।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
   
Website Design and Developed By Engineer BD Network