৫ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার

 

পৌর মেয়রের ইচ্ছে শক্তিতে আলোকিত হতে যাচ্ছে কুয়াকাটা

আপডেট: এপ্রিল ১০, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

হোসাইন আমির,কুয়াকাটা (পটুয়াখলী) প্রতিনিধি
পর্যটন নগরী সাগর কন্যায় তিন মাসেই কাজ দিয়ে কথা রাখতে শুরু করেছেন কুয়াকাটা পৌরসভার র্নিবাচিত মেয়র আনোয়ার হওলাদার। সকাল থেকে শুরু করে রাত ১০ টায় পর্যন্ত মাঠ, ঘাট,ড্রেনেজ,ডোবা নালা পরিস্কার, পরিছন্ন কর্মীর খোজ নেয়া, চলোমান কাজ পরিদর্শন,বিপদে পরা মানুষের খোজ খবর নেয়াসহ বিভিন্ন উন্নায়ন পরিকল্পনা ও দলীয় কাজ নিয়ে ব্যস্ত রাখছেন নিজেকে। যা দেখে এলাকা বাসীসহ আগত পর্যটকদের মুখে মুখে চলছে তার নতুন আলোচনা। র্নিবাচনে নির্বাচিত হওয়ার পর পরই শপথের আগেই কুয়াকাটা সৈকতে পরে থাকা ১২ বছর আগের এলজিইউডির ভবনের বড় বড় কংক্রিট, যাতে প্রায়ই সময় পর্যটকরা গোসলের সময় আহত হইত। সেই কংক্রেট নিজ অর্থায়ানে প্রায় ২ লাখ টাকা ব্যায় কওে তুলে নেন যাতে এলাকাবাসী ও পর্য়টকদের মাঝে তাক লাগিয়েছেন। তার পর ১৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধু জন্মশত বার্ষীকিতে ১০দিন ব্যপী সৈকতে পর্যটকদের বিনোদনে জন্য দেশর বিভিন্ন শিল্পী ও কুয়াকাটা শিল্পীগোষ্ঠী দিয়ে কনর্সাট করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন সকলের মাঝে।

গতকাল কুয়াকাটার বেড়ীবাধে বাহিরে ভুইয়া বাড়ীর বিটিশ আমলের পড়ে থাকা বিশাল ডোবাকে পরিছন্ন করে সৌন্দয্য বর্ধনে লেক করার মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন যাতে দেশ-বিদেশীরা পর্যটকরা ব্যাপক বিনোদন পাবে বলে সকলে ধরনা করছেন। তাতে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যায় হবে বলে ধারণা করছেন পৌর কর্র্র্তৃপক্ষ। র্দীঘ দিন পরে থাকা ঐ ডোবায় মেয়র যখন প্রাথমিক ভাবে সফল হয়েছেন সে বাকি কাজটা পরিকল্পীত ভাবে সফল হবে বলে সমাকর্মীরা ধারণা করছেন। কথা হয় ঔখানে সাবেক কেয়ার টেকার ফয়েজ মিয়া র্ফাম এন্ড ফার্মস লিঃ- নারিকেল বাগানের কুদুস মিয়া (৫৫) তিনি জানান, মেয়র আনোয়ার আমাগো এই যে কত বড় একটি কাজ করছেন যা আমি ১২ বছর চাকরি করছি পরিনি, মনে হয় বাকি কাজও সে করতে পারবে সকলেই তার জন্য দোয়া করছেন। সমাজ কর্মী তরুন ক্লাবের সভাপতি ওয়াহিদ ইব্রাহিম জানান, মেয়র মহদয় শুরু থেকে যেসব কাজ করতেছে তার ধরাবাকি যদি অব্যহত থাকে তা হইলে আগামি ৫ বছর পরে আমরা গর্ব করে বলতে পারবো কুয়াকাটা একটি আধুনিক পর্যটন কেন্দ্র । নির্বচনের আগে কথা দিয়েছিলো সে তার কথা রাখছে।


কুয়াকাটা প্রেসক্লাব ও ট্যুরিজম ম্যানেজমেন্ট এ্যাসোসিয়েশন (কুটুম‘র) সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লব জানান, মাত্র তিন মাস হলো মেয়র হলো তার মধ্যে যে দ্বায়ীত্ব নিয়ে কাজ শুরু করছে এ ভাবে যদি চলতে থাকে সে দিক খেয়াল করি তাতে ভালই চলছে । সবাই এই কাজে সহযোগীতা করনে তা হইলে কুয়াকাটা আধুনিক মডেল পৌরসভা হবে । স্বপ্নের সিড়িতে দাড়িয়ে পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার জানান, ভোটের আগে জনগনকে কথা দিয়ে ছিলাম নির্বাচিত হতে পারলে আপনাদের নিয়ে কাজ করব। চেস্টায় ত্রæটি করব না মন দিয়ে করছি বাকি দিন গুলি আল্লাহ উপর ভারসা আপনারা ও জনগন সহয়তা করলে ইচ্ছে পোষন করছি আগামি পাচ বছর পরিকল্পীত ভাবে কাজ করে নতুন কিছু সৃষ্টি করতে চাই । আগত পর্যটক ও আমার পৌর জনগন যেন কাজের মাঝে আমাকে স্বরণ রাখে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
 
Website Design and Developed By Engineer BD Network