১৯শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

আমতলীতে বাঁশ কাটাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ৮

আপডেট: জুন ৮, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি।
বাঁশ কাটাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ৮ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ছয়জনকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে মঙ্গলবার দুপুরে আমতলী উপজেলার আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের গোডাঙ্গা গ্রামে।
জানাগেছে, উপজেলার আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের গোডাঙ্গা গ্রামের ইউসুফ আলী হাওলাদারের সাথে প্রতিবেশী দুলাল মৃধার জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। মঙ্গলবার ইউসুফ আলী তার বাঁশ বাগানে একটি বাঁশ কাটতে যায়। দুলাল মৃধা ওই বাগানের জমি তার দাবী করে এতে বাঁধা দেয়। এ নিয়ে ইউসুফ আলীর সাথে দুলাল মৃধার কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় দুলাল মৃধা, আল আমিন, হানিফা, মামারুলসহ তার লোকজন বৃদ্ধ ইউসুফ আলীর উপর হামলা চালায় এমন দাবী বৃদ্ধ ইউসুফ আলীর। এ সময় ইউসুফ আলীকে রক্ষায় তার লোকজন এগিয়ে আসে। এক পর্যায় উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের ৮ জন আহত হয়। গুরুতর আহত ইউসুফ আলী (৭০),ইমরান (১৩), খাদিজা (৪৫), সাদ্দাম (৩০), রিপন (১৯), রাহিমাকে (৫০) আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অপর আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।
আহত ইউসুফ আলী হাওলাদার বলেন, আমার বাগারের বাঁশ আমি কাটতে গেলে দুলাল মৃধা, আল আমিন, মামারুল, রিপন, হানিফ মৃধা ও হালিম আমাকে ও আমার মেয়েসহ চারজনকে মারধর করেছে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।
এ বিষয়ে দুলাল মৃধা মারধরের কথা অস্বীকার করে বলেন, আমার বাঁশ বাগানের বাঁশ কাটতে গেলে আমি বাঁধা দিয়েছি। এ নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়েছে মাত্র।
আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডাঃ হিমাদ্রী রায় বলেন, আহত ছয়জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের যথাযথ চিকিৎসা দেয়া হয়।
আমতলী থানার ওসি মোঃ শাহ আলম হাওলাদার বলেন, অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
   
Website Design and Developed By Engineer BD Network