২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

কুয়াকাটার সৈকতে পর্যটক নেই

আপডেট: জুলাই ২৩, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

কুয়াকাটা(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি
পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটার নেই কোন পর্যটক। ঈদুল আযহার দ্বিতীয় দিনে সৈকতে হঠাৎ করে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে স্থানীয়দের আনাগোনা বেড়ে যায়। নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্তে¡ও ইকোপার্ক সংলগ্ন ঝাউবাগান ও মাঝি বাড়ি পয়েন্টে এসব লোকজনদের লক্ষ্য করা গেছে। তারা মাস্ক পরিধান কিংবা স্বাস্থ্যবিধিও মানছেনা। তবে পুলিশের টহল অব্যাহত থাকায় সমুদ্র সৈকতের জিরো পয়েন্ট ছিল একেবারে ফাঁকা।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত পহেলা এপ্রিল থেকে করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটা ভ্রমনে নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার। তারপরও হঠাৎ করে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে সৈকতে বিভিন্ন পয়েন্টে স্থানীয়দের আনাগোনা বেড়ে গেছে। তবে হোটেল মোটেল গুলোতে নেই কোন পর্যটক এমনটা জানিয়েছেন কুয়াকাটার ট্যুরিজম ব্যবসায়িরা।
কুয়াকাটা ট্যুরিজম ব্যসায়িরা জানান, দেশ ব্যাপী করোনা ভাইরাসের কারনে দীর্ঘদিন ধরে পর্যটকদের কুয়াকাটা ভ্রমনে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এর ফলে নেই কোন পর্যটক। আর হোটেল মোটেল গুলোও একেবারে বন্ধ রয়েছে। এখন ঈদের ছুটিতে বেড়াতে আসা ২/৪ জন সৈকতে জড়ো হয়। তাও আবার ট্যুরিষ্ট পুলিশ ধাওয়া দিয়ে উঠিয়ে দিচ্ছেন।
কুয়াকাটা ট্যুরিজম এ্যাসোশিয়েশন (কুটুম) সভাপতি বলেন, কুয়াকাটায় এখন কোন পর্যটক নেই। ঈদের পরে কঠোর লকডাউন পালিত হবে এমন সিদ্ধান্ত সরকার আগে থেকে জানিয়ে দেওয়ায় এবারে এই প্রথম ঈদের পরের দিন কোন পর্যটক আসেনি। স্থানীয় পর্যায়ে কিছু দর্শনার্থী আসলেও ট্যুরিষ্ট পুলিশ কঠোর থাকায় তারা ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছে।
কুয়াকাটার ট্যুরিষ্ট পুলিশ জোনের সহকারি পুলিশ সুপার মো.অব্দুল খালেক বলেন, বাহিরের কোন পর্যটক নেই। পটুয়াখালী জেলার মধ্যে কিছু দর্শনার্থী এসেছিল। তাদেরকেও ফিরিয়ে দিয়েছি। তবে শুক্রবার থেকে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
   
Website Design and Developed By Engineer BD Network