২০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

১৪টি সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজে বিএড (অনার্স) কোর্সের আবেদন ১২ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

সারাবিশ্বের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে চালু হচ্ছে নতুন নতুন ডিসিপ্লিন। সময়ের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে দক্ষ জনবল তৈরির জন্যই নতুন নতুন ডিসিপ্লিন সৃষ্টি করা হয়। উচ্চশিক্ষার স্বপ্নে বিভোর হয়ে ২০১৭ সালেন ১৫ ফেব্রুয়ারি পা দিই বরিশাল সরকারি শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত টিচার্স ট্রেনিং কলেজ ক্যাম্পাসে। সবুজে বেষ্টিত, শান্ত, স্নিগ্ধ, দৃষ্টিনন্দন এই শিক্ষায়তন। উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন নিয়ে হয়ে এখানে হাজির হয়েছে পঞ্চগড়ের পরিতোষ, নীলফামারীর লাবু, কুমিল্লার মুক্তাসহ আরো অনেকে।

প্রথমদিকে অনেকেই জিজ্ঞেস করতেন, টিচার্স ট্রেনিং কলেজে তুমি কি পড়? হ্যা, বর্তমানে দেশের ১৪ টি সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজে ৪ বছর ৮ সেমিস্টার মেয়াদী ব্যাচেলর অব এডুকেশন (বিএড) অনার্স কোর্স করা যাচ্ছে। কোনো কোনোটিতে ১ বছর মেয়াদী মাস্টার্স কোর্সও চালু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সবগুলো প্রতিষ্ঠানে চালুর ব্যাপারটিও প্রক্রিয়াধীন। এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মত সরকারি ও স্বায়ত্ত্বশাসিত বিশ্ববিদ্যালয় এবং কোন কোন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষায় উচ্চশিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ১৪টি সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজে ব্যাচেলর অব এডুকেশন (অনার্স) কোর্সে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে সর্বোমোট আসন সংখ্যা ১০১০টি। এর মধ্যে ঢাকা টিটিসিতে ১১০, ময়মনসিংহ টিটিসিতে ১০০, সিলেট টিটিসিতে ১০০, রংপুর টিটিসিতে ১০০, কুমিল্লা টিটিসিতে ১০০, বরিশাল টিটিসিতে ৫০, খুলনা টিটিসিতে ৫০, পাবনা টিটিসিতে ৫০, রাজশাহী টিটিসিতে ৫০, যশোর টিটিসিতে ৫০, ফরিদপুর টিটিসিতে ৫০, ময়মনসিংহ (মহিলা) টিটিসিতে ১০০, ফেনী টিটিসিতে ৫০, চট্টগ্রাম টিটিসিতে ৫০টি আসন রয়েছে। বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের যেকোন শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ২০১৬/১৮/১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.০ এবং ২০১৮/১৯/২০ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় জিপিএ ২.৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হলে আবেদন করা যাবে। মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের ২০১৬/১৭/১৮ সালে এসএসসি এবং ২০১৮/১৯/২০ সালে এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় আলাদাভাবে জিপিএ ২.৫ থাকতে হবে। অনেকেই আবার প্রশ্ন করে বসেন, বিএড (অনার্স) ও মাস্টার্স করে কি করবে? উত্তরটা সম্ভাবনার কথা বলে। বিএড অনার্স, মাস্টার্স কোর্স সম্পন্ন করে টিচার্স ট্রেনিং কলেজ(টিটিসি), প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই), মাধ্যমিক সেনা শিক্ষা কোর (এইসি), শিক্ষা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রকল্পে চাকুরীর সুযোগ রয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীন “গবেষণা সহকারী” পদ শিক্ষা গ্রাজুয়েটদের জন্য সংরক্ষিত। বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান (এনজিও) তেও চাকুরির ক্ষেত্র রয়েছে। এছাড়া বিসিএস নন-টেকনিক্যাল ক্যাডার,
ব্যাংকসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে ক্যারিয়ার গড়ে তুলবার সুযোগ তো রয়েছেই।

লেখক
ইনজামুল সাফিন
বিএড অনার্স (৬ষ্ঠ সেমিস্টার), সরকারি শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত টিচার্স ট্রেনিং কলেজ, বরিশাল।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
   
Website Design and Developed By Engineer BD Network