১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

শিরোনাম
সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের সাভানা পার্ক পরিদর্শনে দুদক প্রতিনিধি দল, সাংবাদিকদের বাঁধা পার্ক কর্তৃপক্ষের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র না তবুও ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল্লা-হিল-গালিব সাভারের ট্রাক চাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত ইন্দোনেশিয়ায় বাংলাদেশী যুবক ওমর ফারুক জয়ের স্বর্ণ জয় এ অঞ্চল সবসময় দুর্যোগ প্রবন, তাই আপনাদের পাশে দাড়িয়েছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তেলবাহী লড়ি উল্টে গিয়ে আগুন লেগে এক জনের মৃত্যু। ভূমি বিষয়ক তথ্যাদি স্কুলের পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করো হয়েছে-ভূমিমন্ত্রী মির্জা ফকরুলরা তারেক জিয়ার নির্দেশে জনগনের সাথে প্রতারনা ও তামশা করছে-আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিগ বার্ড ইন কেইজ: ২৫ শে মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুর গ্রেফতার 

বানারীপাড়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩৬ জন প্রধান এবং ৬২ জন সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য : শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত

আপডেট: মে ২৩, ২০২৩

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

এস মিজানুল ইসলাম, বানারীপাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা।।

বানারীপাড়া উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩৬ জন প্রধান এবং ৬২ জন সহকারী শিক্ষকের পদ শূণ্য থাকায় উপজেলার প্রাথমিকের শিক্ষা কার্যক্রম দারুণভাবে ব্যহত হচ্ছে।

উপজেলার বিশারকান্দি ইউনিয়নের কলাভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১৩ বছর ধরে প্রধান শিক্ষক নেই। এখানে শিক্ষকের ৭ পোষ্টের বিদ্যালয়ে মাত্র তিনজন সহকারী শিক্ষক রয়েছেন। এদের মধ্যে একজন সহকারী শিক্ষক শারমিন পারভীনকে প্রধান শিক্ষকের চলতি দায়িত্ব দিয়ে রাখা হয়েছে। এ কারণে তাঁকে প্রশাসনিক কাজেই বেশি ব্যস্ত থাকতে হয়। প্রায়ই তাকে প্রত্যন্ত অঞ্চলের এ বিদ্যালয় থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে উপজেলায় দাপ্তরিক কাজে যেতে হয়।

একই চিত্র বানারীপাড়া উপজেলার ৩৬ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। এসব বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে প্রধান শিক্ষক নেই। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দায়িত্ব পালন করছেন। যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বছরের পর বছর ধরে প্রধান শিক্ষক নেই সেগুলো হলো উপজেলার দিদিহার শেরে বাংলা, পশ্চিম বিশারকান্দি, মধ্য পূর্ব বিশারকান্দি, মধ্য বিশারকান্দি, উত্তর বিশারকান্দি, কলাভিটা, দক্ষিন পশ্চিম উমারেরপাড়, বলদিয়া ইলুহার, মধ্য মলুহার, মলুহার বালীবাড়ী আদর্শ, পশ্চিম মলুহার, বড় করফাকর, নলশ্রী, তালাপ্রসাধ, পূর্ব সৈয়দকাঠী, পশ্চিম সৈয়দকাঠী, বাওয়ালিয়া, চাখার, সলিয়াবাকপুর এ রব, খোদাবকসা, দক্ষিন বাইশারী, নাটুয়ারপাড়, কচুয়া রাড়ীপাড়া, পশ্চিম বাইশারী, গঙ্গামনি, তেতলা মধুরভিটা, উদয়কাঠী ইউনিয়ন প্রগতি, দক্ষিন বিশারকান্দি, ত্রিমূখী কদমবাড়ী মন্ডলপাড়া, উত্তর বিশারকান্দি বটতলা, দক্ষিন ইলুহার, মলুহার, পমধ্য সৈয়দকাঠী-১, উত্তর সৈয়দকাঠী, উত্তর তেতলা ও পূর্ব উদয়কাঠী মহম্মদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব বিদ্যালয়ের শিক্ষককে অংশ নিতে হয় বিভিন্ন ট্রেনিং ও ক্লাষ্টারসহ মিটিংয়ে । এসময় তিনি ক্লাস নিতে পারেন না। বাকি দু’জন সহকারী শিক্ষককে সামলাতে হয় পুরো বিষয়। এতে ব্যহত হচ্ছে লেখাপড়া।

এছাড়া উপজেলার ১২৬ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৬২ সহকারি শিক্ষকের পদও শুণ্য রয়েছে। ফলে এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদানসহ শিক্ষা কার্যত্রম চরমভাবে ব্যহত হচ্ছে। জানা গেছে, শহর এলাকায় স্কুল গুলোতে অবসরের কারণে পদ শূন্য হলে অন্য এলাকা থেকে বদলি হয়ে পদ পূরণ হয়। কিন্তু প্রত্যন্ত এলাকার স্কুলগুলোতে অবসরে যাওয়ার পর পদ শূন্যই থেকে যাচ্ছে। তাই প্রতিবছরই বাড়ছে প্রধান শিক্ষকের পদশূন্য স্কুলের সংখ্যা।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, প্রধান শিক্ষকের পদগুলো ৬৫ ভাগ পদোন্নতির মাধ্যমে এবং ৩৫ ভাগ সরাসরি নিয়োগের মাধ্যমে পূরণের বিধান রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে সরাসরি প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে না। আবার সহকারী শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি দেওয়াও বন্ধ রয়েছে। তাই প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ পূরণ করা যাচ্ছে না। এ ব্যপারে বরিশাল জেলা ও বানারীপাড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. জাহিদ হোসেন বলেন, মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে অতিদ্রুত শিক্ষক সংকট দূরীকরণ প্রয়োজন। এ বিষয়ে বানারীপাড়া উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, দীর্ঘদিন ধরে পদোন্নতি ও নিয়োগ বন্ধ থাকায় প্রধান শিক্ষক পদে শুণ্যতা সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে শুধু পাঠদানই নয় শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি ও অফিসিয়াল তথ্য প্রদানসহ বিদ্যালয়ের সার্বিক কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে। মামলাসহ যেসব জটিলতা রয়েছে তা দূর করে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ প্রদান করা অতি জরুরী হয়ে পড়েছে।
এ প্রসঙ্গে বানারীপাড়া উপজেলা শিক্ষা কমিটি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ গোলাম ফারুক বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়েই শিশুদের শিক্ষার ভিত তৈরি হয়। তাই সেখানে পাঠদান সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য পদোন্নতি ও নিয়োগ সংক্রান্ত সব জটিলতার অবসান ঘটিয়ে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ পূরণের জন্য সরকারের উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন। #

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
     
Website Design and Developed By Engineer BD Network