১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

ভোলায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ শিকার করায় ২০৭ জেলে আটক,বিপুল পরিমানে মাছ,জাল ও নৌকা জব্দ

আপডেট: অক্টোবর ২৭, ২০২৩

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

মোঃ সাইফুল ইসলাম আকাশ নিজস্ব প্রতিবেদক,ভোলা: ভোলায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীতে মা ইলিশ শিকারের দায়ে ১২ অক্টোবর থেকে ২৭ অক্টোবর দুপুর পর্যন্ত ২০৭ জন জেলেকে আটক করা হয়েছে। ১২ অক্টোবর থেকে ২৭ অক্টোবর দুপুর পর্যন্ত ভোলা জেলা মৎস্য বিভাগের উদ্যোগে ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকতা মোঃ আবুল কালাম আজাদ ও ভোলা জেলা মৎস্য অধিদপ্তরের সিনিয়র সহকারি পরিচালক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন এর নেতৃত্বে ভোলা সদর,দৌলতখান,বোরহানউদ্দিন,তজুমদ্দিন,লালমোহন,মনপুরা ও চরফ্যাশনের মেঘনা এবং তেঁতুলিয়া নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।আটকৃতদের মধ্যে ভোলা সদরে ৪৬ জন,দৌলতখানে ৭ জন,বোরহানউদ্দিনে ৬ জন,লালমোহনে ৭ জন,চরফ্যাশন ১২৬ জন ও মনপুরার ১৪ জেলে রয়েছে বলে জানা গেছে। এসময় ২.৫৪২ মেট্রিক টন ইলিশ মাছ,৩৫টি নৌকা ও ৯ লাখ মিটার অবৈধ জাল জব্দ করা হয়েছে।ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ আজকের পত্রিকাকে বলেন,১২ থেকে ২৭ অক্টোবর দুপুর পর্যন্ত ভোলার ৭ টি উপজেলায় ৩০০ টি অভিযান পরিচালনা করে ২০৭ জনকে আটক করা হয়েছে এর মধ্যে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ৯৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড,৬৬ জনকে অর্থদন্ড ও ৪২ জনের বয়স কম হওয়ায় মুচলিকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া জব্দকৃত ২.৫৪২ মেট্রিক টন ইলিশ মাছ অসহায়দের মধ্যে বিতরণ ও জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে। মা ইলিশ রক্ষায় তাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান জেলা মৎস্য কর্মকতা। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন উপজেলার মৎস্য অধিদপ্তরের কর্মকতাবৃন্দ,নৌ পুলিশ ও জেলা পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট। উল্লেখ্য যে ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম ১২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করেছে সরকার।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
     
Website Design and Developed By Engineer BD Network