১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

শিরোনাম
সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নামে দূর্নীতির অভিযোগ উঠায় দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে-গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধানের শ্রদ্ধা গোপালগঞ্জে আওয়ামী লীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত শেখ হাসিনার হাত ধরে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল-আ.লীগ নেতৃবৃন্দ টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে তিন সচিবের শ্রদ্ধা আশুলিয়ায় নারী পোশাক শ্রমিককে শ্বাসরোধ করে হত্যা, গ্রেপ্তার ১ । হু হু করে বাড়ছে তিস্তার পানি নদীপাড়ে আতঙ্ক বিরাজ সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের সাভানা পার্ক পরিদর্শনে দুদক প্রতিনিধি দল, সাংবাদিকদের বাঁধা পার্ক কর্তৃপক্ষের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র না তবুও ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল্লা-হিল-গালিব সাভারের ট্রাক চাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

বরগুনায় গভীর রাতে দুর্বৃত্তদের আগুনে জেলের শ্বপ্ন পুড়ে ছাই

আপডেট: অক্টোবর ৩০, ২০২৩

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরগুনা জেলা প্রতিনিধি:
বরগুনা সদর উপজেলায় গভীর রাতে দুর্বৃত্তদের আগুনে জাল-দড়ি পুড়ে জেলের স্বপ্ন শেষ। এতে প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার মূল্যর ইলিশ মাছ ধরার জাল-ধরি পুরে যায়।

রোববার (৩০ অক্টোবর) ভোর রাতে উপজেলার ১০ নং নলটোনা ইউনিয়নের আজগরকাঠি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, মা ইলিশের প্রজনন নিরাপদ করতে ১২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত মোট ২২ দিনের জন্য নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। জেলেরা নিষেধাজ্ঞা মেনে নদীর তীরে ট্রলার জাল ঘুছিয়ে রাখেন। আজ ভোর রাতে দুর্বৃত্তরা নদীর তীরে জালে আগুন ধরিয়ে দেয়। আজগরকাঠি বাজারের দোকানদার আ: সালাম রাতে শীত পড়ায় বাড়িতে যাওয়ার পথে নদীর তীরে ইলিশ ধরার জালে আগুন দেখে ডাক চিৎকার দিলে স্থানীয়রা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী আ: সালাম বলেন, আমি দোকানে রাতে ঘুমাই হটাৎ শীত পরে তাই বাড়ি যাওয়া সময় নদীর চরে জালে আগুন দেখে ডাক চিৎকার দিলে স্থানীয়রা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ট্রলার জালের মালিক মোঃ আবুল কালাম বলেন, সরকারি নিষেধাজ্ঞা মেনে নদীর তীরে ট্রলার জাল গুছিয়ে রাখা হয়। আজ ভোর রাতে দুর্বৃত্তরা জালে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার জাল-ধরি পুড়ে যায়। ব্যাংক থেকে ঋণ টাকা সংগ্রহ করে ট্রলার জাল ক্রয়া করেছি।

তিনি আরও বলেন, তবে কিছু দিন আগে সাগরে বসে ট্রলারের সাথে জাল-দড়ি নিয়ে ঝামেলা সৃষ্টি হয়। স্থানীয় জেলে মোঃ আবুল কালামের মাঝি মোল্লার সাথে সেই ঝামেলা’কে কেন্দ্র করে গত শুক্রবার সালিশি বৈঠক হয়েছিল সে খানে আমি নির্দোষ ছিলাম। আজকে সালিশির রায় ঘোষণার কথা থাকলেও তার আগেই জাল-দড়ি গুলো পুড়ে দিয়েছে। তবে আমার তাদের কে সন্দেহ হচ্ছে। আমি সঠিক তদন্তের মাধ্যমে বিচার চাচ্ছি।

বরগুনা সদর থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একে এম মিজানুর রহমান বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে মৌখিক ভাবে শুনেছি জেলেদের জাল দড়ি দুর্বৃত্তরা আগুন দিয়ে পুড়েছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
     
Website Design and Developed By Engineer BD Network