১৯শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

শিরোনাম
তেলবাহী লড়ি উল্টে গিয়ে আগুন লেগে এক জনের মৃত্যু। ভূমি বিষয়ক তথ্যাদি স্কুলের পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার উদ্যোগ গ্রহণ করো হয়েছে-ভূমিমন্ত্রী মির্জা ফকরুলরা তারেক জিয়ার নির্দেশে জনগনের সাথে প্রতারনা ও তামশা করছে-আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিগ বার্ড ইন কেইজ: ২৫ শে মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুর গ্রেফতার  ঢাবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে ১ কোটি টাকার বৃত্তি ফান্ড গঠিত হাইকোর্টের রায়ে ডিন পদে নিয়োগ পেলেন যবিপ্রবির ড. শিরিন জয় সেট সেন্টার’ থেকে মিলবে প্রশিক্ষণ, বাড়বে কর্মসংস্থান: পীরগঞ্জে স্পীকার বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস আগামীকাল টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী, সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী সাদি মোহম্মদ আর নেই

হিজলায় স্থানীয় রাজনীতির প্রতি হিংসায় হামলা মামলার শিকার হয়ে নিঃস্ব কয়েকটি পরিবার।

আপডেট: জানুয়ারি ২৫, ২০২৪

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

হিজলা প্রতিনিধি।। বরিশালের হিজলা উপজেলার ধুলখোলা ইউনিয়নে স্থানীয় রাজনীতির প্রতি হিংসায় হামলা-মামলার শিকার হয়ে নিঃস্ব হয়েছে কয়েকটি পরিবার।

জানা যায় উপজেলার নদী বিচ্ছিন্ন একটি জনপদ ধুলখোলা ইউনিয়নের আলিগঞ্জ।
আওয়ামী রাজনীতিতে যখন টানাপোড়া ও দলীয় আভ্যন্তরীণ কোন্দলে ধুলখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ দুইভাগে বিভক্ত হয়।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম বেপারী স্থানীয় সাংসদ পংকজ অনুসারী হয়ে সক্রিয়ভাবে রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করে। একই এলাকার উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক বর্তমান ধুলখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন ঢালী,বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ অনুসারী।

২০২১ সালে পার্শ্ববর্তী মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার উলানিয়া ইউনিয়নের আলতু সরদার ও মিজান মোল্লা গ্রুপের সাথে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়।

ওই ঘটনায় পৃথক পৃথকভাবে দুটি মামলা হয়।

আর সেই মামলায় জড়ানো হয়েছে ধুলখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম বেপারী সহ ৬৬ জন আওয়ামী লীগে নেতাকর্মীকে।
তখন আসামিরা এলাকা থেকে পালিয়ে আত্মগোপনে চলে যান।

এর কিছুদিন পরে ওই এলাকায় জামাল উদ্দিন ঢালীর কুটকৌশলে মানসিক ভারসাম্যহীন সিদ্দিক কবিরাজ ও সত্তার ঢালীকে হত্যা করা হয়। আর ওই মামলায় আসামি করা হয় কালাম বেপারী সহ ১৪ জনকে।

এই সুযোগে সৃষ্টি হয় জামাল উদ্দিন ঢালির নেতৃত্বে সন্ত্রাসী বাহিনী।

ওই বাহিনীর শিষ্য সন্ত্রাসী নিজাম, সালাউদ্দিন, বাবু, রফিক, আফসার, হাবিব, সবুজ ঢালী ও মিরাজ গোলদারসহ কয়েকজনে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে।

শুরুতেই আলিগঞ্জ বাজারের প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতা কালাম, জাফর, সুমন, মাসুম, দেলোয়ার সহ অনেকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালামাল সহ প্রায় আড়াই কোটি টাকা লুট করে নিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করে নিজু ও ছালা বাহিনীরা।
ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুট করেই ক্ষান্ত হয়নি এই চক্রটি ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেকের বাড়িঘর লুট করে ভাঙচুর করে। এমনকি স্থানীয় জেলে মাইনুদ্দিন, কবির, বাবুল, খলিল, রাসেল, রফিক সহ কয়েকজনের রুটি রোজগারের একমাত্র অবলম্বন নৌকাসহ জালের সাভার নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ধুলখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম বেপারী জানায় আওয়ামী লীগ করে ও সন্ত্রাসী বাহিনীর হাত থেকে রক্ষা পায়নি এলাকায় আসতে পারিনি আড়াই বছর।
তিনি প্রশাসনের উদ্দেশ্যে বলেন সঠিক তদন্তের মাধ্যমে তাদের লুট করে নেয়া সকল মালামাল ফেরত সহ বিচারের দাবি জানান।

এদিকে বর্তমান চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক জামাল উদ্দিন ঢালী বলেন ভাঙচুর লুটপাট এর কোন বিষয় তার এলাকায় ঘটেনি তাকে সামাজিক ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্যই মূলত এই ষড়যন্ত্র।

হিজলা থানার অফিসার ইনচার্জ জুবাইর আহমেদ বলেন তিনি আসার আগের ঘটনা। তবে বর্তমানে ওই এলাকার আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
     
Website Design and Developed By Engineer BD Network